ভেবে দেখুন তো, এমনটা হয় কিনা

ভেবে দেখুন তো, এমনটা হয় কিনা। বাসায় পরিচিত কোন দম্পতি বেড়াতে এসেছে, সাথে তাদের ৩/৪ বছরের সন্তান। কিছু পরে আপনারা হয়তো গল্প করছেন। সেই বাচ্চাও পাশের রুমেই হয়তো আছে তার মায়ের সাথে। হঠাৎ আকাশ বাতাশ কাঁপিয়ে সেই মাসুম বাচ্চা চিৎকার করে তার মাকে বলে উঠলো- “ওই কুত্তার বাচ্চা”। সাথে সাথে ঠাস করে শব্দ। নির্ঘাত মায়ের হাতের চড়- বেয়াদব, বান্দর বলে মারও গালাগালি। শুরু হলো কান্নার রোল। এদিকে ড্রইং রুমে চা খেতে খেতে আপনারাও ভদ্রলোকেরা সব শুনেও না শোনার ভান করে আছেন। ভাবখানা এমন, ছোট বাচ্চা তো, একটা গালি তো দিয়েছে, এমন কি আর!! খুব জোর সন্তানের বাবা জোর করে মুখে হাসি টেনে বলবেন- এই, কি হলো আবার তোমাদের?
.
মিলিয়ন ডলারের প্রশ্ন, গালিটা এই ছোট্ট সন্তান শিখলো কিভাবে? এই বয়সে?

আসলে উত্তরটা আমরা জানি। বান্দর বলে গালিটা মাও তো দিয়েছে সাথে সাথে। স্কুলে ভর্তি না হয়ে থাকলে চান্স মোটামুটি ৯৯%, এই গালি সে শিখেছে নিজের পরিবার থেকেই। হয়তো বাবা-মার কোন একদিনের তুমুল ঝগড়া থেকেই। বা হয়তো বাচ্চাকে এভাবেই শাসন করে তারা। কে জানে!!
.
আবার বাবা-মার বাধ্য একদম বাধ্য শিশু সন্তান, এমন উলটো চিত্রও কিন্তু চোখে পড়ে। যেমনটা একজন বাবা-মা আশা করে, তাদের সন্তানটাও এমনই হোক। সুবহান’আল্লাহ!! বাবা-মায়ের কথা ছাড়া তাদের এক পাও নড়ে না। কিছু করতে গেলেই বাবা-মায়ের অনুমতি লাগবেই। তার মিষ্টি মুখের ভাষা, আচার-ব্যবহার, সবই বলে দেয়, এই সন্তানকে ছোট থেকেই গড়ে তোলা হয়েছে আসলে এইভাবেই। মূল কাজটা করেছে এখানেও তার পরিবার, সন্দেহ নেই।
.
এই বিষয়ে শাইখ মির্জা ইয়াওয়ার বেইগের কথাগুলো আমার খুবই অসাধারন লাগে, মাশা’আল্লাহ!! লাইনগুলো মাথায় খুব ভাল করে গেঁথে নেওয়া উচিত, সকল বাবা-মাদের বিশেষ করে-
.
“Children listen with their eyes. They don’t care what you say until they see what you do. Whatever you do is under the lights, will be noticed, learnt and emulated.”
.
অর্থাৎ, বাচ্চারা কিন্তু কানে নয়, চোখ দিয়ে শোনে। আমরা যাই করি তাদের সামনে, যাই বলি, ফটোকপির মতো সেটা তাদের মাথায় গেঁথে যায় আসলে, সেটাই তারা মনে রাখে, আস্তে আস্তে শিখে ফেলে। কাজেই নিজেরাই যদি আদর্শ মুসলিম বাবা-মা না হতে পারি, কমপক্ষে চেষ্টাটুকু না করি, কিভাবে আশা করি যে পাশের ফ্ল্যাটের ভদ্র, আদব কায়দা জানা বাধ্য সন্তানটার মতো আমাদের সন্তানও সেরকমই হবে? যে ছোট থাকতেই আস্তে আস্তে সলাত আদায় করবে, সিয়াম আদায় করবে, পর্দা করা শিখবে? যে ক্বুরআন শিখবে, সুন্নাহ বুঝবে, দ্বীন ইসলামের উপরে থাকবে। যে বেয়াড়া হবে না, উগ্র হবে না বরং বিনয়ী হবে?
.
আপনারাও তো মুসলিম। ঘরে সন্তান নামক অমূল্য আমানত দুনিয়ায় উপহার দিয়েছেন আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা আপনাকেও। মুমিন বান্দা-বান্দীর গুণগুলো আপনার মাঝে আপনার বাচ্চারা দেখে তো, ২৪ টা ঘন্টা? ভাবুন। শুধরানোর সময় এখনই!

 

>>>Courtesy:- Golam Muktadir<<<

Share this Post
Scroll to Top