অধিকাংশ কোন দলিল নয় বরং অধিকাংশ মানেই বিপদ।

➲অধিকাংশ মানুষ তাওহিদ থেকে দূরে
➲অধিকাংশ মানুষ সুন্নাহ থেকে দূরে
➲অধিকাংশ মানুষ শিরক বিদাতে জড়িত
➲অধিকাংশ লোক বেনামাজি,,
➲অধিকাংশ লোক মিলাদ পড়ে,,
➲অধিকাংশ লোক অন্ধ ভাবে মাযহাব মেনে চলে,,
➲অধিকাংশ লোক পীর ভক্ত,,
➲অধিকাংশ লোক চল্লিশা করে,,
➲অধিকাংশ মানুষ জালেম
➲অধিকাংশ মানুষ ফাসেক
➲অধিকাংশ মানুষ সুদ খুর

➲অধিকাংশ লোক কিচ্ছা কাহিনি শিরক, কুফুর ও বিদাতি তাবলিগ/ওয়াজ পছন্দ করে,,
➲অধিকাংশ লোক নামাযে সুরা ফাতিহা পড়েনা,,
➲অধিকাংশ লোক মাজারে যায়,,
➲অধিকাংশ লোক বিভিন্ন তরিকা অনুসরন করে,,,
➲অধিকাংশ মানুষ দলিও অন্ধ ভক্ত
➲অধিকাংশ লোক নেশাদার দ্রব্য তামাক,জর্দা,গুল,বিড়ি, সিগারেট ইত্তাদি পান করে,,
➲অধিকাংশ লোক টাখনুর নিচে প্যান্ট পড়ে,,
➲অধিকাংশ লোক নামাযের পরে সম্মিলিত মুনাযাত করে,,,
➲অধিকাংশ মানুষ কওমে লোত এর ন্যায় দাঁড়ি চাছে/কাটে !!
————– এটাই বাস্তবতা!!!

★★★★★★★★★★★★★★

অধিকাংশদের ব্যাপারে আল্লাহতালা কি বলেন দেখেন :-

■►“অধিকাংশ মানুষ প্রকৃত ব্যাপার সম্পর্কে অবগত নয়” [সূরা ইউসুফ : ৬৮]
■►“অধিকাংশই নির্বোধ” [সূরা মায়িদাহ ১০৩]
■►“অধিকাংশ লোকই অবগত নয়” [সূরা আনআম :৩৭]
■►“অধিকাংশই অজ্ঞ” [সূরা আনআম : ১১১]
■►“অধিকাংশই জানে না” [সূরা আরাফ : ১৩১]
■►“তুমি যতই প্রবল আগ্রহ ভরেই চাও না কেন, মানুষদের অধিকাংশই ঈমান আনবে
না” [সূরা ইউসুফ :১০৩]
■►“আমি তোমার নিকট সুস্পষ্ট আয়াত নাজিল করেছি, ফাসিকরা ছাড়া অন্য কেউ তা অস্বীকার করে না; বরং তাদের অধিকাংশই ঈমান রাখে না” [সূরা বাকারাহ: ৯৯-১০০]
■►“আমি তো তোমাদের কাছে সত্য নিয়ে গিয়েছিলাম, কিন্তু তোমাদের অধিকাংশই ছিলে সত্য অপছন্দকারী” [সূরা যুখরুফ :৭৮]
■►“তাদের অধিকাংশকেই আমি প্রতিশ্রুতি পালনকারী পাইনি, বরং অধিকাংশকে ফাসিকই পেয়েছি” [সূরা আরাফ : ১০২]
■►“তুমি যদি পৃথিবীর অধিকাংশ লোকের অনুসরন কর তাহলে তারা তোমাকে আল্লাহর পথ হতে বিচ্যুত করে ফেলবে, তারা কেবল আন্দাজ-অনুমানের অনুসরন করে চলে; তারা মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছুই করে না” [সূরা আনআম : ১১৬]
■►‘’তাদের অধিকাংশ কেবল ধারনার অনুসরন করে; সত্যের মোকাবেলায়
ধারনা কোন কাজে আসে না’’ [সূরা ইউসুফ : ৩৬]
■►“অধিকাংশ মানুষ আল্লাহকে বিশ্বাস করে,কিন্তু সাথে সাথে শিরকও করে’’ [সূরা ইউসুফ: ১০৬]
■►“আমি কি তোমাদের জানাব কাদের নিকট শয়তানরা অবতীর্ণ হয়? তারা অবতীর্ণ হয় প্রত্যেকটি চরম মিথ্যুক ও পাপীর নিকট। ওরা কান পেতে থাকে আর তাদের অধিকাংশই মিথ্যাবাদী’’ [সূরা শু’আরা :২২১-২২৩]
■►“তারা তাদের পিতৃ-পুরুষদের বিপথগামী পেয়েছিল। অতঃপর তাদেরই পদাংক অনুসরন করে ছুটে চলেছিল। এদের আগের লোকদের অধিকাংশই গুমরাহ হয়ে গিয়েছিল” [সূরা সাফফাত : ৬৯-৭১]
■►আরবী ভাষায় কুরআন,জ্ঞানসম্পন্ন মানুষদের জন্য সুসংবাদবাহী ও সাবধানকারী। কিন্তু ওদের অধিকাংশই (এ কুরআন থেকে) মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে, কাজেই ওরা শুনবে না” [সূরা ফুসসিলাত : ১-৪]
■■►অধিকাংশ লোকের ব্যাপারে প্রায় ৬৭টি আয়াত আছে।

=? সুতরাং হে আমার মুসলিম ভাই ও বোনেরা আসুন আমরা “অধিকাংশের” অজুহাত
বাদ দিয়ে ”কুরআন” ও “সুন্নাহর” অনুসরন করি।

=?দল ভারী মানেই যে তারা সবাই সঠিক,, এটা ভাবা মূর্খামি ছাড়া আর কিছুই হতে পারেনা,
আপনি যদি বলেন যে এতো কোটি কোটি লোক এই কাজটি করছে তারা কি সবাই ভুল,,?
সবাই যা করবে তাই কি ঠিক ? আপনার কথা যদি এটাই হয়,, তাহলে কি কিয়ামতের দিন যখন ৭৩ কাতার মানুষের মধ্যে ৭২ কাতারই জাহান্নামে যাবে,, তখন কি আপনি বলবেন, আমিও তাদের সাথে যাব,,,!
সেটাই কি ঠিক হবে,,?
আপনার কথা মতোতো এটাই হওয়া উচিত,,তাই নয় কি ?

Share this Post
Scroll to Top