স্ত্রীকে মুহাব্বত করার সুন্নাত তরীকা‬।

১। রসূল(সাঃ)বিবিগণকে খুব
মুহাব্বত করতেন।
২। তাদেরকে চুমু দিতেন
এবং কখনো কখনো তাদের
উরুতে মাথা রেখে শুয়ে থাকতেন।
৩। হযরত আয়েশা (রাঃ) পাত্রের মুখের
যে জায়গায় মুখ দিয়ে পানি পান
করতেন, রসুল(সাঃ)সে জায়গায়ই মুখ
দিয়ে পান করতেন।
৪। রসূল(সাঃ) হাঁড়ের
যে জায়গা থেকে গোস্ত খাওয়া শুরু
করতেন হযরত আশয়া (রাঃ)ও হাড়ের ঐ
জায়গা থেকে গোস্ত খাওয়া শুরু করতেন।
৫। মাঝে মাঝে বিবিদের
সাথে বসে বিভিন্ন ঘটনা, কাহিনী ও
আন্যান্য আলোচনা করতেন। এক এক
বিবি নতুন নতুন কিসসা শুনাতেন, তখন
রসূল(সাঃ)আনন্দে উৎফুল্ল
হয়ে নিজেও কিসসা শুনাতেন।
হযরত আয়েশা (রাঃ) বলেন,
রসূল(সাঃ)আমাদের
মধ্যে এমনভাবে হাসতেন, কথা বলতেন ও
বসে থাকতেন, আমাদের মনেই
হতো না যে তিনি একজন মহান পয়গাম্বর।
(উসওয়ানে রাসূলে আকরাম)
৬।তিনি মাঝে মাঝে আনসারী ছোট বালিকাদের
খেলাধূলা করার জন্য হযরত
আয়েশা (রাঃ) এর কাছে ডেকে আনতেন
এবং তিনি তাদের সাথে খেলাধূলায়
যোগ দিতেন।
৭। একবার রসূল(সাঃ)হযরত
আয়েশা (রা) সাথে দৌড়
প্রতিযোগিতা দিয়ে ইচ্ছা করে হেরে যান।
কিছুদিন পর পুনরায় দৌড় হলে হযরত
আয়েশা (রাঃ) হেরে যান। অতঃপর
রসূল(সাঃ) বললেন,
হে আয়েশা! আজ
আমি তোমাকে হারিয়ে দিয়েছি,
তুমি আমার সঙ্গে পার নি। এটা প্রথম
প্রতিযোগিতায় তুমি জিতে যাওয়ার
বদলা। (আবু দাউদ শরীফ, হাদীস নং-২২১৪)
৮। তিনি বিবিদের ভৎসনা, তিরস্কার
করতেন না এবং তাদের সাথে রুক্ষ্ম
ভাষায় কথা বলতেন না।
বরং মায়া জড়ানো, মন
জুড়ানো আকর্ষণীয় কথা ও
ভাবভঙ্গি দিয়ে বুঝিয়ে দিতেন।
তাদের কোন কথা মনের বিপরীত
হলে তাদের সে কথা থেকে মনোযোগ
ফিরিয়ে অন্য চিন্তা করতেন ।
৯। আয়েশা (রাঃ) বলেন,
রসূল(সাঃ)অত্যন্ত
খুশি মনে মুচকি হাসতে হাসতে গৃহে প্রবেশ
করতেন এবং হৃদয়পূর্ণ সালাম দিতেন।
(উসওয়ায়ে হাসানাহ)
১০। রসূল(সাঃ)কখনো বিছানার
ব্যাপারে দোষ ধরতেন না, যা পেতেন
তার উপরই শুয়ে থাকতেন। (আদাবু নবী)
১১। রসূল(সাঃ)বলতেন,
তোমাদের মধ্যে সে-ই উত্তম যে তার
স্ত্রীর সঙ্গে ভাল ব্যবহার করে।
আমি আমার স্ত্রীদের সাথে সবার
চাইতে ভাল ব্যবহার করি।
(তিরমিযী শরীফ, হাদীস নং-১০৮২)
(সুন্নাতি জিন্দেগী)

আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করি তিনি যেন আমাদেরকে ও সমস্তু মুসলমানকে সুন্নাতে রাসুল মজবুতভাবে ধারন করার ও তার প্রতি অটল থাকার এবং সুন্নাতের পরিপন্থী বিষয় থেকে বেচেঁ থাকার তাওফীক দান করেন, তিনিই তো পরম দাতা দয়ালু. আল্লাহ তার বান্দা ও রাসুল আমাদের নবী মুহাম্মদ (সা:) এবং তার বংশধর ও সমস্তু সাহাবীগণ এর প্রতি দরুদ ও সালাম বর্ষন করেন।
.
আল্লাহুম্মা আমিন,সুম্মা আমিন, ইয়া রাব্বাল আলামিন।

Share this Post
Scroll to Top