নিঃসন্তান হওয়া কি পাপ?

নিঃসন্তান হওয়া নেপথ্যে মানুষের কোনো হাত নেই। তবে হ্যা যদি কেউ ইচ্ছা করে সন্তান গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকে। তবে সে এই সন্তান গ্রহণ না করার জন্য গুনাহগার হবে। আল্লাহ মহানের তাকদিরের ফয়সালা মোতাবেক নিঃসন্তান হওয়া পাপ নয় কিন্তু নিজেদের ইচ্ছা মতো সন্তান গ্রহণ করা থেকে বিরত থেকে নিঃসন্তান থাকা পাপ- মহাপাপ।
মানুষকে সন্তান-সন্তুতি দানকারী একমাত্র আল্লাহ মহান। মানুষের কোনো ক্ষমতা বা শক্তি নেই যে সে ইচ্ছা স্বাধীন মতো সন্তান গ্রহণ করবে আবার ইচ্ছা স্বাধীন মতো সন্তান গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকবে। অথচ কন্যা বা পুত্র সন্তান জন্মদানে মানুষের কিছুই করার থাকে না।
পুত্র বা কন্যাশিশু হয়ে থাকে মহান আল্লাহর ইচ্ছায়। তাই তিনি জানিয়ে দিচ্ছেন- ‘যাকে ইচ্ছা দেন কন্যা সন্তান/ করেন ইচ্ছা হলে পুত্র প্রদান। আবার যখন এমন ইচ্ছা তাঁর হয়/ পুত্র ও কন্যা দেন একত্রে উভয়। যাকে ইচ্ছা তিনি বন্ধ্যা করান/ সর্বজ্ঞ নিশ্চয়ই এক মহাশক্তিমান’।। (কাব্যানুবাদ : শুরা-৪৯, ৫০)
নিঃসন্তান হওয়া নেপথ্যে মানুষের কোনো হাত নেই। তবে হ্যা যদি কেউ ইচ্ছা করে সন্তান গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকে। তবে সে এই সন্তান গ্রহণ না করার জন্য গুনাহগার হবে। আল্লাহ মহানের তাকদিরের ফয়সালা মোতাবেক নিঃসন্তান হওয়া পাপ নয় কিন্তু নিজেদের ইচ্ছা মতো সন্তান গ্রহণ করা থেকে বিরত থেকে নিঃসন্তান থাকা পাপ- মহাপাপ।
————————–————————–—–
• Present by – Bayzid Bin Osman
Share this Post
Scroll to Top